প্রচ্ছদ রাজনীতি, স্লাইডার

নাস্তিক্যবাদী ও ব্রাহ্মণ্যবাদী ভাবাদর্শের সিলেবাসধারার মাধ্যমে সুশীল সমাজ গঠন সম্ভব হবে না

শিক্ষাকে ইসলামীকরণ করতে হব: মাওলানা নেজামী

স্টাফ রিপোর্টার | বৃহস্পতিবার, ২৬ অক্টোবর ২০১৭ | পড়া হয়েছে 450 বার

শিক্ষাকে ইসলামীকরণ করতে হব: মাওলানা নেজামী

 

ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী শিক্ষাকে ইসলামীকরণের প্রয়োজনীয়তার ওপর বিশেষভাবে গুরুত্বারোপ করে বলেছেন যে, ধর্মনিরপেক্ষ, নাস্তিক্যবাদী ও ব্রাহ্মণ্যবাদী ভাবাদর্শের চেতনাসম্পন্ন শিক্ষা ধারার মাধ্যমে এদেশের জনগণের মন-মানসিকতার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ সমাজ গঠন করা সম্ভব হবে না। তিনি বলেন, ব্রাহ্মণ্যবাদের প্রতিচ্ছায়ারূপী একশ্রেণীর লোক এদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণের ঈমান-আক্বিদা, বিশ্বাস, মূল্যবোধ ও সাংস্কৃতিক স্বাতন্ত্র্য বিনাশী প্রবন্ধ-নিবন্ধ, স্কুল, কলেজ ও মাদরাসায় বাধ্যতমূলকভাবে পড়ানোর ব্যবস্থা করে শিক্ষার্থীদের সর্বশক্তিমান আল্লাহ-তায়ালা ও তাঁর রাসুল সা.’র প্রতি বিশ্বাস থেকে বিমূখ করার অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। তাঁরা স্বজাতির শিক্ষা ব্যবস্থাকে দেখেন ব্রাহ্মণ্যবাদী ও নাস্তিক্যবাদী প্রকরণে। তারা সাম্রাজ্যবাদ, ইহুদীবাদ ও ব্রাহ্মণ্যবাদের বলয়াবৃত। বিভ্রান্ত বিশ্বাসের অনুবর্তী এসব লোকদের উপলব্ধিতে আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় বিজাতীয় সম্প্রকাশ ঘটছে।

বৃহস্পতিবার (২৬ অক্টোবর-১৭) সকাল ১০টায় পুরানা পল্টনস্থ মাওলানা আতহার আলী রহ. মিলনায়তনে বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির সিলেবাসের ওপর আয়োজিত এক আলোচনা সভায় ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন।

সহ-সভাপতি অধ্যাপক এহতেশাম সারোয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় শিক্ষা বিভিন্ন দিকের ওপর আলোকপাত করে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা শেখ লোকমান হোসেন ও মুফতি এএনএম জিয়াউল হক মজুমদার, সাংগঠনিক সচিব মাওলানা একেএম আশরাফুল হক, সহকারী মহাসচিব আলহাজ্জ ওবায়দুল হক, রবিউল ইসলাম রুবেল ও মাওলানা মাহবুবউল্লাহ, অর্থ সচিব মুফতি আবদুল কাইয়ূম, প্রচার সচিব মাওলানা মমিনুল ইসলাম, শিল্প ও বাণিজ্য সচিব মাওলানা আবুল হাসান, শ্রম সচিব মাওলানা মাজহারুল ইসলাম, সৈয়দ মোঃ আহসান, র্ফরুখ আহমদ, মণির হোসেন, ইসলামী ছাত্র সমাজের মহাসচিব মোঃ নুরুজ্জামান প্রমূখ।

মাওলানা নেজামী আরো বলেন, আধিপত্যবাদীরা শিক্ষা ক্ষেত্রে তাদের আধিপত্যি লিপ্সা চরিতার্থ করতে চায় তাদের এদেশীয় দোসরদের মাধ্যমে। তাই মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ বাংলাদেশের স্কুল, কলেজ ও মাদরাসার পাঠ্যপুস্তক প্রণেতারা আধিপত্যবাদী সংস্কৃতির অন্ধ অনুসারী। তারা দেশ-জাতি ও জনগণের স্বতন্ত্র জাতীয়তাবোধ, আদর্শ, ইতিহাস-ঐতিহ্য, তাহযিব-তমদ্দুন, বিশ্বাস ও মূল্যবোধ এবং সাংস্কৃতিক স্বাতন্ত্র্যের চেতনা বিধ্বংসী সিলেবাস প্রণয়নে প্রবৃত্ত হয়েছে।

অন্যান্য বক্তারা বলেন, স্বকীয়তার চেতনাকে সঞ্জীবিত রাখার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনে স্বচেস্ট ইসলামী শিক্ষা রহিতকরণের ষড়যন্ত্র, মূলতঃ শিক্ষাকে বিধর্মীয়করণ প্রক্রিয়ারই ধারাবাহিকতা মাত্র। তারা বলেন, এই সিলেবাস একপেশে, একমূখী, মূল্যবোধহীন, নৈতিতিকতাহীন, ধর্ম এবং ইতিহাস-ঐতিহ্য বিরোধী। সিলেবাসে এদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমানদের ইসলাম ধর্ম চর্চা থেকে সরিয়ে নেয়ার প্রয়াস লক্ষনীয়।

সভাশেষে পার্টিও সিনিয়র সহসভাপতি ও ইসলামী ঐক্যজোটের ভাইস-চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুর রশিদ মজুমদারের রোগমুক্তি কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয়। তিনি বর্তমানে রাজধানীর গুলশানস্থ ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

qaominews.com/কওমীনিউজ/এইচ

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

আর্কাইভ