প্রচ্ছদ মনীষী জীবন

মাওলানা আবদুর রহীম: চিন্তাবিদ ও রাজনীতিক

মনীষী জীবন ডেস্ক | শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ | পড়া হয়েছে 1046 বার

মাওলানা আবদুর রহীম: চিন্তাবিদ ও রাজনীতিক

মাওলানা মুহাম্মদ অবদুর রহীম (১৯১৮-১৯৮৭)

মাওলানা মুহাম্মদ অবদুর রহীম রহ.। ইসলামী চিন্তাবিদ, সাহিত্যিক, রাজনীতিবিদ, সাবেক সংসদ সদস্য, ইসলামী আন্দোলনের সিপাহসালার ও ইসলামী ঐক্য আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা। তার ২৯তম ওফাৎবার্ষিকী ১ অক্টোবর। ১৯৮৭ সালের এই দিনে ইন্তেকাল করেন।

১৯১৮ সালের ২ মার্চ পিরোজপুরের কাউখালিস্থ শিয়ালকাঠি গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৩৮ সালে শর্ষিনা আলীয়া মাদ্রাসা হতে আলিম পাশ। ১৯৪০ সালে কোলকাতা আলীয়া মাদ্রাসা থেকে ফাযিল। ১৯৪২ সালে উক্ত মাদ্রাসা হতে প্রথম শ্রেণীতে টাইটেল। ১৯৪৩-৪৫ সালে কোলকাতা মাদ্রাসায় কোরআন ও হাদীস সম্পর্কে গবেষণার কাজ সম্পাদন। ১৯৪৫-৪৭ বরিশালের রঘুনাথপুর (নাজিরপুর) হাই মাদ্রাসায় হেড মাওলানার দায়িত্বপালন। ১৯৪৭-’৪৮ কেউন্দিয়া (কাউখালী) হাই মাদ্রাসায় হেড মাওলানার দায়িত্ব পালন। ১৯৪৮-’৪৯ পাকিস্তানের আদর্শ প্রস্তাব আন্দোলনে অংশগ্রহণ। ১৯৪৯-’৫০ বরিশাল থেকে সাপ্তাহিক ‘তানজীম’ পত্রিকা সম্পাদনা করেন। ১৯৫৬ সাপ্তাহিক জাহানে নও প্রকাশনা ও পরিচালনা। ১৯৫৯-’৬০ দৈনিক নাজাতের জেনারেল ম্যানেজারের দায়িত্বপালন। ১৯৫৫ থেকে ১৯৬৮ পূর্ব পাকিস্তান জামায়াতে ইসলামীর আমীর হিসেবে ছিলেন। ১৯৬০-’৭১ ইসলামী গবেষণা একাডেমীর পরিচালক। ১৯৭১-’৭৪ নেপালের কাটমান্ডুতে অবস্থান ও ইসলামী সাহিত্য রচনায় অত্মনিয়োগ। ১৯৭৬-’৮১ বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টারের চেয়ারম্যান এবং একই সময়ে ইসলামী অর্থনীতি গবেষণা ব্যুরোর চেয়ারম্যানের দায়িত্বপালন। ১৯৭৭-’৮৩ আই,ডি,এল-এর চেয়ারম্যানের দায়িত্বপালন।

১৯৭৭ মক্কায় বাদশা আবদুল আজিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে আয়োজিত প্রথম বিশ্ব ইসলামী শিক্ষা সম্মেলনে যোগদান। ইসলামিক ফাউন্ডেশন গবেষণা কর্ম পুরষ্কার লাভ। ১৯৭৭ মক্কায় রাবেতা আল আলম আল ইসলামীর সম্মেলনে যোগদান। ১৯৭৮ কুয়ালালামপুর প্রথম দক্ষিন-পূর্ব এশীয় ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় ইসলামী দাওয়াত সম্মেলনে যোগদান। ১৯৭৮ করাচীতে অনুষ্ঠিত রাবেতার প্রথম এশীয় ইসলামী সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্বদান। ১৯৭৯ দ্বিতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয় লাভ এবং সংসদে আই,ডি,এল পার্লামেন্টারী গ্রুপের নেতা হিসেবে দায়িত্বপালন। ১৯৮০ কলম্বোতে অনুষ্ঠিত আন্তঃপার্লামেন্টারী সম্মেলনে যোগদান। ১৯৮২ প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা। ১৯৮২ সালে তেহরানে ইসলামী বিপ্লবের তৃতীয় বার্ষিকী উৎসবে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বদান এবং ইমাম খোমেনীর সাথে সাক্ষাৎ। ১৯৮৩ হাফেজ্জী হুজুরের নেতৃত্বে সম্মিলিত সংগ্রাম পরিষদে যোগদান। ১৯৮৩ পাশ্চাত্যের গণতান্ত্রিক ধারা প্রত্যাখানের মধ্য দিয়ে আই,ডি,এল-এর নাম পরিবর্তন করে নবুওয়াতী ধারা গণআন্দোলনের পথ বেছে নিয়ে ইসলামী ঐক্য আন্দোলন প্রতিষ্ঠা করেন ও আমৃত্যু চেয়ারম্যানের দায়িত্বপালন। ১৯৮৩ অনুবাদের জন্য ইসলামী ফাউন্ডেশন পুরস্কার। ১৯৮৭ বৃহত্তর ইসলামী ঐক্যের লক্ষ্যে সমমনাদের নিয়ে ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের সূচনা।

মাওলানার শতাধিক মৌলিক ও অনুবাদ গ্রন্থের মধ্যে উল্লেখযোগ্য পরিবার ও পারিবারিক জীবন, ইসলামে অর্থনীতি, ইসলামে জিহাদ, সুন্নাত ও বিদআত, আল কোরআনের আলোকে উন্নত জীবনের আদর্শ, আল কোরআনে শির্ক ও তাওহীদ, আল কোরআনে রাষ্ট্র ও সরকার, আল কোরআনে নবুয়ত ও রিসালাত, হাদীস সংকলনের ইতিহাস, ইসলামে হালাল-হারামের বিধান, যাকাত বিধান, আহকামুল কোরআন, শিক্ষা -সাহিত্য ও সংস্কৃতি।

ইসলামী সাহিত্যের বহু মৌলিক গ্রন্থের রচয়িতা মাওলানা মুহাম্মাদ আবদুর রহীমের জীবনের বিভিন্ন দিকের উপর ঢাকা, রাজশাহী চট্রগ্রাম ও ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৫ জনকে পিএইচডি ডিগ্রী প্রদান করেছে। এছাড়া মালেশিয়া ও বাংলাদেশের আরো কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা চলছে।

qaominews.com/কওমীনিউজ/বি/এম

মন্তব্য করতে পারেন...

comments

আর্কাইভ