• বুধবার ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম

    মসজিদ কমিটি নিয়ে সংঘর্ষ, নাঙ্গলকোটে নিহত ১

    অনলাইন ডেস্ক | ০৮ আগস্ট ২০২০ | ৮:২৯ অপরাহ্ণ

    মসজিদ কমিটি নিয়ে সংঘর্ষ, নাঙ্গলকোটে নিহত ১

    ছবি: সংগৃহীত

    কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে মসজিদ কমিটি নিয়ে সংঘর্ষে জমসেদ আলম ভূঁইয়া (৭০) নামের এক পল্লী চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। অপরদিক এ ঘটনায় অন্তত আরও ৮ জন আহত হওয়ার ঘটনা ঘটে। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার বক্সগঞ্জ ইউপির বাকীহাটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। শনিবার নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় পুরো এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

    আহতরা হলেন, ওমর ফারুক ভূঁইয়া, তানবীর হাছান ভূঁইয়া, কাজী মিজানুর রহমান, কাজী মোস্তাফিজুর রহমান, আনোয়ার হোসেন ভূঁইয়া, সামছুল আলম ভূঁইয়া, সামছুদ্দিন ও আব্দুল মতিন।


    নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, শত বছর পূর্বে বাকীহাটি গ্রামে একটি মসজিদ নির্মাণ করেন কাজী বাদশা মিয়া নামের এক ব্যক্তি। পরে ১৯৯২ সাল থেকে ওই মসজিদ কমিটিতে সভাপতির দায়িত্ব নিয়ে মসজিদটি পরিচালনা করে আসছেন রুহুল আমিন। তিনি বার্ধক্যজনিত কারণে গত ১ বছর পূর্বে ওই মসজিদের সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেন। প্রায় এক বছর ধরে ওই মসজিদে কোনও কমিটি না থাকায় শুক্রবার জুমার নামাজের সময় কাজী হুমায়ন কাজী নজির আহম্মদকে সভাপতি ও পল্লী চিকিৎসক কাজী ইয়াছিনকে সাধারণ সম্পাদক করে একটি কমিটি ঘোষণা করেন।

    এ ঘটনার জের ধরে ওই দিন আসরের নামাজের সময় সাদ্দাম হোসেন কাজী হুমায়ুনকে মারধর করলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। পরে সাবেক ইউপি সদস্য জাফর উল্ল্যাহর নেতৃত্বে ৩৫-৪০ জন দেশীয় অস্ত্র-স্বস্ত্র নিয়ে হামলা চালিয়ে ২টি বাড়ির বেড়া ভাংচুর করা হয়। এতে সংঘর্ষে ৯ জন আহত হয়েছে।


    স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক পল্লী চিকিৎসক জমসেদ আলমকে মৃত ঘোষণা করেন। বাকিদের কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের মেয়ে ফারহানা আলম কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, কমিটি নিয়ে তার পিতাকে পিটিয়ে হত্যা করেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পুলিশ প্রাশাসনের কাছে এ হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় এনে সঠিক বিচার দাবি জানান তিনি।

    অভিযুক্ত সাবেক ইউপি মেম্বার জাকার উল্লার নেতৃত্বে শাহিন, মনির হোসেন, আজগর, মোতালেবসহ অন্যান্য অভিযুক্তদের বাড়িতে গিয়েও বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। এ ঘটনার সাথে জড়িতরা পলাতক রয়েছে।


    এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার অফিসার ইনচার্জ বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

    কওমীনিউজ/মুনশি

    Facebook Comments

    বাংলাদেশ সময়: ৮:২৯ অপরাহ্ণ | শনিবার, ০৮ আগস্ট ২০২০

    qaominews.com |

    advertisement

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    advertisement
    শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০৩১ 
    advertisement

    Editor : A K M Ashraful Hoque

    51.51/A,, Resourceful Paltal City, Purana Paltan, Dhaka-1000
    E-mail : qaominews@gmail.com

    ©- 2020 qaominews.com all rights reserved