• শনিবার ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

    শিরোনাম

    নেত্রকোনায় নানা আয়োজনে হুমায়ূন আহমেদকে স্মরণ

    নিজস্ব প্রতিবেদক | ১৯ জুলাই ২০২০ | ৭:২৫ অপরাহ্ণ

    নেত্রকোনায় নানা আয়োজনে হুমায়ূন আহমেদকে স্মরণ

    ছবি: সংগৃহীত

    নন্দিত ও জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক, নাট্যকার ও চলচ্চিত্র নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের অষ্টম মৃত্যুবার্ষিকী শ্রদ্ধার সঙ্গে পালিত হয়েছে নেত্রকোনায়। এ উপলক্ষে রবিবার (১৯ জুলাই) লেখকের নিজের হাতে গড়া কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুর গ্রামে শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠের উদ্যোগে কুরআনখানি, শোক র‌্যালি, পুষ্পস্তবক অর্পণ, দোয়া ও মিলাদ মাহফিলসহ নানা কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

    এছাড়া জেলা প্রেস ক্লাবে এ উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।


    প্রয়াত হুমায়ূন আহমেদ বাবার স্মৃতি রক্ষার্থে ২০০৬ সালে তিন একর জমিতে নির্মাণ করেন শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠ। বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে দশম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান চলছে। বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক আসাদুজ্জামান বলেন, ‘আমাদের প্রিয় হুমায়ূন আহমেদ স্যার এই এলাকার অবহেলিত মানুষের শিক্ষা বিস্তারে বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত করেন। স্যার এই প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের জন্য সব সময় ভাবতেন। কিন্তু স্যার আজ নেই, এই দিনটি আসলেই তার নানা স্মৃতি আমাদের কষ্ট দেয়। তার আত্মার মাগফিরাতের জন্য আমরা দোয়া করি। আজ স্যারের প্রিয় শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে কুরআনখানি, দোয়া মাহফিলসহ বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে।’

    শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠের শোক র‌্যালিএদিকে, সকালে ‘নেত্রকোনা হিমু পাঠক আড্ডা’র আয়োজনে জেলা প্রেস ক্লাবে হুমায়ূন আহমেদের অষ্টম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে উপস্থিত ছিলেন– প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক ও ছড়াকার শ্যামলেন্দু পাল, মুক্তিযোদ্ধা হায়দার জাহান চৌধুরী ও নেত্রকোনা সাহিত্য সমাজের সভাপতি অধ্যাপক কামরুজ্জামান চৌধুরী, হিমু পাঠক আড্ডার সমন্বয়ক আলপনাসহ অন্যরা।


    অনুষ্ঠানে শ্যামলেন্দু পাল হুমায়ূন আহমেদের বাংলা সাহিত্যে যে অবদানের কথা স্মরণ করে তার স্মৃতি রক্ষার্থে জন্মভূমি নেত্রকোনায় একটি গবেষণাগার তৈরির দাবি জানান। তিনি বলেন, ‘এই গবেষণাগার তৈরি হলে নতুন প্রজন্ম হুমায়ূন আহমেদ এবং বাংলা সাহিত্যে তার অবদান সম্পর্কে জানতে পারবে।’

    নেত্রকোনা সাহিত্য সমাজের সভাপতি, কবি অধ্যাপক কামরুজ্জামান চৌধুরী বলেন, ‘নতুন প্রজন্ম যদি মোবাইল ফোনে ডুবে না থেকে বই পড়লে জ্ঞান অর্জন করতে পারবে।’ তিনি তরুণ প্রজন্মকে হুমায়ূন আহমেদের বই পড়ার পরামর্শ দেন।


    মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিক হায়দার জাহান চৌধুরী বলেন, ‘হুমায়ুন আহমেদের মতো কথাসাহিত্যিক নেত্রকোনায় জন্মগ্রহণ করায় আমরা গর্বিত।’ তিনি নেত্রকোনার সর্বস্তরের মানুষকে হুমায়ূন আহমেদকে স্মরণ করার আহ্বান জানান।

    ২০১২ সালের ১৯ জুলাই হুমায়ূন আহমেদ মারা যান।

    কওমীনিউজ/মুনশি

    Facebook Comments

    বাংলাদেশ সময়: ৭:২৫ অপরাহ্ণ | রবিবার, ১৯ জুলাই ২০২০

    qaominews.com |

    advertisement

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    advertisement
    শনিরবিসোমমঙ্গলবুধবৃহশুক্র
     
    ১০১১
    ১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
    ১৯২০২১২২২৩২৪২৫
    ২৬২৭২৮২৯৩০৩১ 
    advertisement

    Editor : A K M Ashraful Hoque

    51.51/A,, Resourceful Paltal City, Purana Paltan, Dhaka-1000
    E-mail : qaominews@gmail.com

    ©- 2020 qaominews.com all rights reserved